নির্বাচনে যাওয়ার জন্য যে শর্ত দিলেন গয়েশ্বর

রাজনীতি: আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য দেশের বড় রাজনৈতিক বিরোধী দল বিএনপিকে বারবার আহ্বান করা হচ্ছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে।

কিন্তু বিএনপি বরাবরই তা নাকচ করে দিয়েছে। তারা বলছে, আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে তারা নির্বাচনে যাবে না। গতকাল (রোববার) সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির প্রভাবশালী সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করে নির্বাচনে আসবে বিএনপি। বিএনপির এ নীতি-নির্ধারক বলেন, দেশের জনগণের ‘সম্পদ লোটপাটকারী’

আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচনে আসবে না বিএনপি। মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় বর্তমান সরকারকে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রভাবমুক্ত নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করব।যেদিন বিএনপি নেতাকর্মীরা ভোট দিতে পারবে,

এখানে কথা হচ্ছে, তাদের আগে জনসমক্ষে বলতে হবে যে, এই সরকার পদত্যাগ করবে। তারপরে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে। শুধু সে ক্ষেত্রেই আমরা নির্বাচনে যাব। ক্ষমতায় থেকে আরও কতদিন এভাবেই জোরজবরদস্তি করে ক্ষমতায় থাকবেন, সেটা নিয়ে নির্বাচন করতে আমরা আগ্রহী না। সেটা হবে আসলে বিলাপ। ওই বিলাপের আমাদের প্রয়োজন নেই। সেদিনই আমরা নির্বাচনে আসব।

দুপুর ১টায় শাল্লা উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের আয়োজনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা বিএনপির উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তাহির রায়হান পাবেলের সার্বিক সহযোগিতায় বাহাড়া ইউনিয়নের যাত্রাপুর গ্রামের মন্দির প্রাঙ্গণে উপজেলা বিএনপি সভাপতি এবং সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গনেন্দ্র চন্দ্র সরকারের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়ালের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায়,

জেলা বিএনপি সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য কলিমউদ্দিন আহমেদ মিলন, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম নুরুল। সভা শেষে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। এরপর বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে দিরাই কলেজ রোডে একটি কমিউনিটি সেন্টারে ত্রাণ বিতরণ করেন গয়েশ্বর। এ সময় দিরাই উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.