নতুন কমিটিতে যুক্ত হতে চায় হেফাজত, জানা গেল আসল কারণ

আমাদের যে ৫ টি মৌলিক চাহিদা রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম একটি হলো শিক্ষা। শিক্ষা ছাড়া জাতি গঠন কল্পনা করা অসম্ভব। একমাত্র শিক্ষার মাধ্যমেই দেশ ও জাতিকে উন্নত করা যেতে পারে।

আর সে শিক্ষা হতে হবে মানুষের জন্য কল্যাণ জনক। বর্তমানে দেশের শিক্ষা খাত নিয়ে ষড়যন্ত্র চলছে বলে দাবি হেফাজতের ইসলামের। সংগঠনের আমির শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী ও মহাসচিব সাজিদুর রহমান দাবি জানিয়েছেন,

শিক্ষা আইন ২০২২ খসড়া কমিটিতে আলেমদের যুক্ত করতে। রবিবার (৩ জুলাই) এক বিবৃতিতে এ দাবি জানায় হেফাজত। হেফাজত আমির শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী ও মহাসচিব সাজিদুর রহমান বিবৃতিতে বলেন, সিলেবাস থেকে ইসলামকে বাদ দেওয়ার জন্য ষড়যন্ত্রে

লিপ্ত রয়েছে দেশ ও ইসলাম বিরোধী শক্তিগুলো। তারা সুকৌশলে দেশের শিক্ষা খাত থেকে ইসলাম মুছে ফেলতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। করোনার অজুহাতে গত দুই বছর ইসলাম শিক্ষার পরীক্ষা নেওয়া হয়নি। শোনা যাচ্ছে নতুন শিক্ষানীতিতে ইসলাম শিক্ষাকে বাদ দিয়ে কথতি নৈতিক শিক্ষা প্রবেশ করানো হচ্ছে।

বিবৃতিতে তার আরও বলেন, পাঠ্যপুস্তক ও জাতীয় শিক্ষাক্রম থেকে ইসলামী শিক্ষাকে সঙ্কুচিত করা চরম উদ্বেগজনক বিষয়। এমনিতেই সকল ক্ষেত্রে মূল্যবোধহীনতার চর্চা বেড়েছে। মূল্যবোধহীনতার মূলে ধর্মীয় শিক্ষার অভাব অন্যতম কারণ।

হুঁশিয়ারি দিয়ে হেফাজত বলছে, ৯০ ভাগ মুসলমানের দেশে পাঠ্যসূচী থেকে ইসলামকে বাদ দেওয়া তো দূরের কথা, কল্পনা করারও দুঃসাহস দেখানো উচিৎ হবে না। এদেশের ইসলাম প্রিয় জনতা তা মেনে নেবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.