পুলিশের ওপর হামলা, পুলিশ আহত- অতঃপর

গত সোমবার (২৭ জুন) দুপুর ১২টার দিকে নবীনগর-চন্দ্রা সড়কের পল্লীবিদ্যুৎ এলাকায় মহাসড়ক অবরোধ করে পুলিশের ওপর হামলা চালায় রিকশাচালকরা।

সাভারের আশুলিয়ায় মহাসড়কে অটোরিকশা থেকে জরিমানা আদায়ের প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় ১০ জনের

নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে আশুলিয়া থানা পুলিশ। মঙ্গলবার (২৮ জুন) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার বাদী আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর আলম।

মামলায় আসামিরা হলেন- বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাভার আশুলিয়া আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি কে এম মিন্টু, সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু, আশুলিয়া থানা রিকশা ও ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল মজিদ,

সাধারণ সম্পাদক আলতাব হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মামুন দেওয়ান, সহ-সভাপতি আলম পারভেজ, সদস্য নান্নু মিয়া, হাফিজুল ইসলামসহ আশুলিয়া থানা রিকশা ও ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের ১০ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা অন্তত ১৫ জন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রোববার মাইকিং করে সংগঠনের নেতারা রিকশাচালকদের আশুলিয়ার বাইপাইল ত্রি-মোড় এলাকায় বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেয়। বিক্ষোভ সমাবেশের ডাকে সাড়া দিয়ে পরের দিন সোমবার সকালে বাইপাইল ত্রি-মোড় এলাকায় জমায়েত হয় রিকশাচালকরা।

পরে সেখান থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে পল্লীবিদ্যুতের আমার স্কুলের সামনে গিয়ে মহাসড়ক অবরোধের চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশ বাধা দিলে পুলিশের ওপর হামলা, ইটপাটকেল ছুড়ে পিছু হটিয়ে মহাসড়ক অবরোধ করেন তারা।

এ ঘটনায় এক পুলিশ সদস্য আহত হন। অবরোধের প্রায় দেড় ঘণ্টা পর আশুলিয়া থানার অফিসার্স ইনচার্জ কামরুজ্জামান রিকশাচালকদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে দেন। পরে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

মঙ্গলবার পুলিশ বাদী হয়ে ১০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, উস্কানি, সরকারি কাজে বাধা ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.