হাত মোছার গামছায় ময়লা, বাবা-ছেলে মিলে মুয়াজ্জিনকে মারধর। অতঃপর…

মসজিদে রাখা হাত-মুখ মোছার গামছায় ময়লা থাকার কারণে তর্কের জেরে মুয়াজ্জিনকে মারপিট করা হয় বাবা ছেলে মিলে। নাটোরের সিংড়া উপজেলার চৌগ্রাম

এলাকায় মসজিদের ভেতর মুয়াজ্জিন ও তার ভাইকে মারপিটের মামলায় অভিযুক্ত বাবা-ছেলেকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। রবিবার (৩ জুন) দুপুরে এ আদেশ দেন আদালত।

সিংড়া থানার ওসি নূর এ আলম সিদ্দিকী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। কারাগারে পাঠানো দুই জন আব্বাস আলী (৭০) ও তার ছেলে হাবিব আরমান (৩২)। আব্বাস আলীর স্ত্রী চৌগ্রাম ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাছিনা বেগম।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল ইসলাম ভোলা প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে জানান, শনিবার বিকালে সিংড়া চৌগ্রাম কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে নামাজ পড়তে যান বাবা ও ছেলে। ওজু করার পর মসজিদে রাখা গামছায় হাত-

মুখ মুছতে গিয়ে তারা জানান ওই গামছায় ময়লা রয়েছে। এ নিয়ে তর্কের জেরে আসামিসহ আরও একজন মুয়াজ্জিন নিজামুদ্দিন (৮০) ও তার ভাইকে মারপিট করেন। মুসল্লিরা রক্তাক্ত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

পরে রবিবার সকালে মুয়াজ্জিনের ভাইকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আনিসুর রহমান বলেন, ওই ঘটনায় মুয়াজ্জিনের ভাতিজা আতিকুল ইসলাম বাদী হয়ে তিন জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। এ ঘটনায় দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। রবিবার দুপুরে কোর্টে চালান দিলে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.