ওরা সব সময় সঠিক কথা বলে না, স্বার্থের ফিকিরে নিষেধাজ্ঞা দেয়

আলোচিত: পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বিদেশিরা সব সময় সঠিক কথা বলে না। অনেক সময় ফন্দিফিকিরের কারণে স্বার্থের ফিকিরে নিষেধাজ্ঞা দেয়।তাদের মধ্যে দুইটি ফেস!

একটি পাবলিক ফেস আরেকটি প্রাইভেট ফেস। এটা উপলব্ধি করার সময় এসেছে। পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে মঙ্গলবার আয়োজিত সেমিনারে তিনি এ মন্তব্য করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন ইস্যুতে বিদেশিদের অবস্থানের পেছনে নানা উদ্দেশ্য বা ফন্দি ফিকির থাকে। ড. মোমেন বলেন, পদ্মা সেতুর অর্থায়ন নিয়ে দেশি-বিদেশি বহু ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

সেই সময় কোনো কোনো বিদেশি সংস্থার লোকজন সেতু আদৌ হবে কিনা সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন। আর তাদের কথায় সে সময় দেশের মধ্যেও কিছু লোক লাফালাফি করেন। তবে পদ্মা সেতু তৈরির মাধ্যমে আমরা প্রমাণ করেছি,

আমরা চাইলেই করতে পারি। বিদেশিরা অনেক সময় নিজেদের স্বার্থে ফন্দি ফিকির করেন। তারা নিষেধাজ্ঞা দেয়। বিদেশিদের কথায় কখনও লাফানো উচিত নয়। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান সে সময়ের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলেন,

দাতাদের অযৌক্তিক সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে স্বপ্নের এ প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেন প্রধানমন্ত্রী। সে সময়ের সেতু সচিব ও বর্তমানে জার্মানির রাষ্ট্রদূত মোশাররফ হোসেন ভূইয়া জানান, প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কেউ কেউ সে সময় বিশ্বব্যাংককে ভুল তথ্য সরবরাহ করে থাকতে পারেন। অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বক্তৃতা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *