যাকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বানানোর প্রস্তাব দিলেন রওশন এরশাদ

বর্তমানে সংসদের বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করছে জাতীয় পার্টি। তবে এরশাদের মৃত্যুর পর থেকে ভাঙ্গন শুরু হয় জাতীয় পার্টির।

এদিকে বেশ কিছুদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন বিরোধী দলের নেত্রী রওশন এরশাদ। সুস্থ হয়েই তার সন্তান সাদকে দলের চেয়ারম্যান করা প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি।

এর আগে জাতীয় পার্টির চিফ প্যাট্টন ও সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ বলেছেন, দল থেকে যাদের অব্যাহিত দেওয়া হয়েছে,

তাদের ফিরিয়ে নিতে হবে। সবাইকে নিয়েই পার্টি শক্তিশালী করতে হবে। তিনি এও অভিযোগ করেছেন, হাসপাতালে শুয়ে আমি সব খবর নিয়েছি, কিন্তু কেউ আমার খোঁজ নেয়নি।

শনিবার (২ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেলে জাতীয় পার্টি আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন রওশন এরশাদ।

সভায় অবশ্য দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নুসহ সিনিয়র নেতারা কেউ অংশ নেননি। সভায় এরশাদ ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান কাজী মামুনুর রশীদ দাবি করেছেন, রওশন এরশাদ বেঁচে থাকতেই যেন তার সন্তান সাদকে দলের চেয়ারম্যান করা হয়। কাজী মামুন কিছুদিন জাতীয় পার্টি পুনর্গঠনের উদ্যোগে বিদিশার নেতৃত্বে ছিলেন।

সভায় রওশন আক্ষেপ করেন, ‘সাবেক রাষ্ট্রপতি পল্লীবন্ধু এরশাদ যেভাবে পার্টিকে উজ্জীবিত করে রেখেছিলেন, এখন তা নেই। দল এখন অনেকটাই এলোমেলো। তাই যাদের অব্যাহিত দেওয়া হয়েছে, তাদের ফিরিয়ে নিতে হবে।’

রওশন আরও বলেন, ‘অনেক ভালো নেতাকর্মী দলের বাইরে আছেন। তাদের আনতে হবে। নতুন প্রজন্মকে দলে আনতে হবে।’‌ ক্ষোভ প্রকাশ করে রওশন বলেন, ‘দলের কে কী করেছেন, থাইল্যান্ডে হাসপাতালের বেডে শুয়ে সব খবর নিয়েছি। আমার খবর কেউ নেয়নি। যাদেরকে দল থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে, তারাই আমার নিয়মিত খোঁজ রেখেছেন, প্রার্থনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *