শুধু বাংলাদেশ নয়, পাকিস্তানিরাও শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে চায়

ভারতের পার্লামেন্টে সুষমা স্বরাজ কয়েক বছর আগে বলেছেন, বাংলাদেশে গত এক দশকে ৮ শতাংশ হিন্দু বৃদ্ধি পেয়েছে। আগে ছিল ২ শতাংশ।

এখন তা ১০ শতাংশ। এতে কি বোঝা যায়? মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমলে সকলেই একসাথে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বাস করতে পারে। সুষমা স্বরাজের বক্তব্য অনুযায়ীই হিন্দু বৃদ্ধি পেয়েছে।

বাংলাদেশ সকলের জন্য এখন নিরাপদ। পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেছেন, পাকিস্তানিরাও তাদের দেশে শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে চায়। গতকাল শুক্রবার (১ জুলাই) বিকেলে ঢাকার ধামরাইয়ে

শ্রী শ্রী যশোমাধবের রথযাত্রার রথটান উপলক্ষে আয়োজিত সভায় এ মন্তব্য করেন। শ্রী শ্রী যশোমাধব মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি মেজর জেনারেল (অব.) জীবন কানাই দাশের সভাপতিত্বে সভায় সঞ্চালনা করেন কমিটির সাধারণ সম্পাদক নন্দ গোপাল সাহা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেন, পাকিস্তানের এক রাজনীতিক পার্লামেন্টে বলেছেন, শেখ হাসিনাকে পাকিস্তানে এনে দাও। পাকিস্তানকে সে বাংলাদেশ বানিয়ে দিক এটাই আমাদের চাওয়া। কী বোঝায়?

যে পাকি বাঙালিরা এখনো পাকিস্তানি কৃষ্টি-কালচার নিয়ে রাজনীতি করে। অথচ পাকিস্তানিরা চায় শেখ হাসিনা সেখানে প্রধানমন্ত্রী হোক। তাদের পরিবর্তন হোক। আর কী চান আপনারা? প্রতিমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবেন। কেননা ক্ষমতা পরিবর্তনের উপায় হচ্ছে নির্বাচন। জনগণ যাকে ভোট দিবে তারাই বিজয় লাভ করবেন।

তবে এ সময় মন্ত্রী বলেন, গত ১৩ বছরে শেখ হাসিনা সরকারের যে অবদান জনগণ নিশ্চয় আবারও শেখ হাসিনা সরকারকে ভোট দিবেন। পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী জানান, দক্ষিণ এশিয়ার শিক্ষার হার বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি, গড় আয়ু বেশি, মাতৃমৃত্যু সবচেয়ে কম, শিশু মৃত্যু সবচেয়ে কম। এ সময় রথযাত্রার প্রশংসা করে ড. শামসুল আলম বলেন, এটা একটি স্মরণীয় অনুষ্ঠান। আজকের এই আয়োজন স্বতঃস্ফূর্তভাবে আপনারা পালন করতে পারছেন। নির্বিঘ্নে পালন করতে পারছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.