আইভীকে দেখিয়ে দিলাম

রাজনীতি: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, সমালোচনা সহ্য করার সক্ষমতা এতটাই হয়ে গেছে যে সাংবাদিকদের

প্রতি এখন সবসময় কৃতজ্ঞতা জানাই। কি যে উপকার করেছেন আপনারা তা অবিশ্বাস্য। আরেকজনকে ধন্যবাদ দিতে হয়, তিনি আমার শ্রদ্ধেয় বড় ভাই। তার কারণে আমি সারা বাংলাদেশ ও

পৃথিবীতে পরিচিত হয়েছি। তিনি আমার অনেক ধৈর্য বাড়িয়ে দিয়েছেন। মাটিও মনে হয় এত ধৈর্য ধরেনা। আমি রাগ করা আর কড়া ভাবে কথা বলাও ভুলে গেছি। আমি সেভাবেই থাকতে চাই।

২৮ জুন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ জেলা গ্রন্থাগারে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন। এদিন অসুস্থ সাংবাদিকদের মাঝে চেক বিতরণ ও ফল উৎসবের আয়োজন করে নারায়ণগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়ন।

তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আমি আপনাদের অনুরোধ করবো, গঠনমূলক সমালোচনা করুন। কারো নির্দেশে অযথা মানুষকে হয়রানী করবেন না প্লিজ। হয়রানীতে বাধ্য হয়ে এক পর্যায়ে আইনের আশ্রয় নেই।

কারণ এত মিথ্যা অনেক সময় ধৈর্যে কুলায় না। আগের থেকে অনেকটা বেটার অবস্থানে নারায়ণগঞ্জ। ২০০৪ বা ২০১১ তে যেই অবস্থা ছিলো তার থেকে ভালো অবস্থান এখন। আপনাদের সকলের শুভ বুদ্ধির উদয় হোক। আমরা আপনাদের শত্রু না। আমরা আপনাদের নিয়ে ও পাশে থেকেই কাজ করতে চাই। আপনাদের কলমে জোর আছে তো ভালো কিছু লিখুন। আমাদের পথ দেখান এবং সমাজকে পরিবর্তন করুণ। পরিবর্তনের সাথে আমাদের জড়ান। কিভাবে আমরা ভালো কাজ করবো সেই বিষয়ে দিকনির্দেশনা দিন। কলম আছে বলেই দুই কলম লিখে টেবিল চাপড়ে বলেন ‘আজকে আইভীকে দেখিয়ে দিলাম’। এগুলি অপেশাদারি সাংবাদিকতা। এগুলির জন্য সাংবাদিকদের কোর্স দরকার।

মেয়র আইভী জনপ্রতিনিধিদের বেতন বৃদ্ধির দাবী জানিয়ে বলেন, ‘আমাদেরও কষ্ট আছে। জনপ্রতিনিধিদের বেতন অনেক সামান্য। একজন ইউপি চেয়ারম্যান, কাউন্সিলররা খুবই সামান্য সম্মানী পান। এটা বৃদ্ধি করা উচিত। শুধুই আমলাদের যদি বেশী করে সম্মানী দেয়া হয় তাহলে জনপ্রতিনিধিরা কেন পাবে না? অথচ প্রান্তিক পর্যায়ের যেকোন সমস্যায় তারাই আগে ছুটে আসেন। অথচ তাদের জীবন যাত্রার মানের কথা চিন্তা করেন না। আমরা শুধু তাদের নামে নেগেটিভ কথাই শুনে থাকি। কিন্তু ভালোটা বলা হয় খুব কম।’ সুত্রঃ দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *