বিয়ের প্রলোভনে অবৈধ মেলামেশা, বিয়ে না করায় গৃহবধূ যে কান্ড ঘটালেন

সংবাদ: ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় বিয়ের প্রলোভনে অবৈধ মেলামেশার পর বিয়ে না করায়

সংশ্লিষ্ট থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছে এক গৃহবধূ। উপজেলার রুপাপাত ইউনিয়নের মোড়া গ্রামের বাসিন্দা

মো. রফিক মোল্যা (৪০) নামে এক ব্যাক্তির বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (২২ জুলাই) দুপুরে বোয়ালমারীর ডহরনগর

পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. কবির হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ গত বুধবার (২০ জুলাই)

রফিক মোল্যার নামে বোয়ালমারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। অভিযোগটি বর্তমানে ডহরনগর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মো. কবির হোসেন তদন্ত করছেন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রফিক মোল্যা ওই গৃহবধূর স্বামীর সাথে দীর্ঘদিন তাদের বাড়িতে যাওয়া আসা করতো। যাওয়া আসার মাধ্যমে তারা প’রকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে।

গত দুই বছর আগে ওই গৃহবধূকে বিয়ের প্রলোভন ও লোভ লালসা দিয়ে রফিক মোল্যা ফরিদপুরের সালথার রুপাপাতে বাসা ভাড়া করে বসবাস করে বিয়ে না করেই। গত ৬ মাস আগে রফিক মোল্যা ফের ওই গৃহবধূকে নিয়ে সহস্রাইল ভাড়া বাসায় নিয়ে বসবাস শুরু করে এবং বিয়ে না করে অবৈধ ভাবে মেলামেশা করতে থাকে।

গত ১৭ জুলাই রফিক মোল্যাকে ওই গৃহবধূ বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে অকর্থ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখায়। অভিযোগে আরো উল্লেখ করেন, ওই গূহবধূর নিকট থেকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নগদ ৩ লক্ষ টাকা ও দেড় ভরি স্বর্ণ নিয়ে যায় রফিক মোল্যা। গৃহবধূর দুই সন্তান।

এ ব্যাপারে রফিক মোল্যা বলেন, তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। তাকে মিথ্যাভাবে ফাঁসানো হচ্ছে বলে দাবী করেন। অভিযোগ তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. এসআই কবির হোসেন বলেন, রফিক মোল্যার বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলছে। আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.