কেন ‘আত্মহ’ত্যা’ করলেন লাবণি? মামা জানালেন বিস্তারিত…

সংবাদ: খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) লাবণি আক্তার আত্মহ’ত্যা করেছেন বলে দাবি করেছেন তার মামা যশোর বিমান

বাহিনী কলেজে সহকারী অধ্যাপক মোল্লা হাসিবুর রহমান। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) দুপুরে তিনি বলেন, ‘লাবণির সঙ্গে তার স্বামী তারেক আবদুল্লাহর মনোমালিন্য ছিল। তারই ধারাবাহিকতায় সে নানার বাড়িতে আত্মহ’ত্যা করে।’

হাসিবুর রহমান বলেন, ‘পারিবারিক বিষয় নিয়ে স্বামীর সঙ্গে লাবণির কলহ চলছিল। ছোটবেলা সে অত্যন্ত জেদি প্রকৃতির ছিল। নিজের আত্মসম্মান বজায় রাখতো। হয়তো কোনও বিষয় নিয়ে স্বামীর সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়েছে, এজন্য আত্মহ’ত্যা করে থাকতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘লাবণির মৃ’ত্যুতে তার মা অচেতন হয়ে আছেন। তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল আজম অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। শফিকুল আজম শ্রীপুরের নাকোল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন।

ছয়-সাত বছর আগে তিনি অবসর নিয়েছেন। তিনি বরালিদহ গ্রামের নিবাসী। লাবণির দুই মেয়ে রয়েছে। বড় মেয়ে তাসনিয়া (৮) এবং ছোট মেয়ে তাসকিয়া (৩)। তাসনিয়া খুলনার একটি স্কুলে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী।’

তিনি জানান, লাবণির স্বামী তারেক আব্দুল্লাহ মাগুরা সদরের হজিপুর গ্রামের বাসিন্দা। খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া উইং আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘গত ১৮ জুলাই থেকে ছুটি নিয়ে গোয়েন্দা বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) লাবণি আক্তার মাগুরায় নানার বাড়ি যান। তার দুটি মেয়ে রয়েছে। তার স্বামী তারেক আব্দুল্লাহ বাংলাদেশ ব্যাংক খুলনার এডি। তিনি ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত। তিনি বর্তমানে চেক-আপের জন্য ভারতে রয়েছেন। লাবণি বিসিএস ৩০তম ব্যাচের পরীক্ষার্থী ছিলেন।’বৃহস্পতিবার ভোর রাতে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) লাবণি আক্তারের ঝুলন্ত লা’শ মাগুরা শ্রীপুরের নানাবাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোশারফ হোসেন জানান, শ্রীপুর থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.