সংসদে বক্তব্যের ফাঁকে গান, এ নিয়ে যা বললেন মমতাজ

এর আগেও বিভিন্ন সময় জাতীয় সংসদ অধিবেশনে গান করে প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন দেশের ফোক সম্রাজ্ঞী হিসেবে খ্যাত মমতাজ বেগম। তবে এবার যেন অতীতের সব

আবেগ-অনুভূতিকে ছাড়িয়ে গেলেন এই গায়িকা-সংসদ সদস্য। এবার ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ বেগমের গানে এক হয়ে মাতলো পুরো সংসদ। হাততালি আর সমর্থনে

ভালোবাসা দিলেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও।গত মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে এমন দৃশ্য ফুটে উঠল। এদিন বাজেট অধিবেশনের ওপর বক্তব্য রাখেন মমতাজ। বক্তব্যের ফাঁকে ফাঁকে প্রধানমন্ত্রী

শেখ হাসিনা ও পদ্মা সেতু নিয়ে করা তিনটি গানের অংশ বিশেষ গেয়ে শোনান মমতাজ। এ ছাড়া আবৃত্তি করেন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের অফিসিয়াল থিম সংটি। মমতাজের এমন পরিবেশনায় মুগ্ধ হন সংসদে উপস্থিত সংসদ সদস্যদের অনেকেই।

তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উচ্ছ্বাসটা ছিল নজরকাড়া। তিনি টেবিল চাপড়িয়ে, হাততালি দিয়ে মমতাজের গান উপভোগ করেন। মমতাজের সেই গান-বক্তব্যের ভিডিও রাতেই সামাজিকমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

বিষয়টি নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত মমতাজ। গণমাধ্যমকে নিজের প্রতিক্রিয়ায় মমতাজ বলেন, ‘সত্যি বলতে আমি কাগজে করে কিছু কথা লিখে নিয়েছিলাম। তবে গান ধরার পর অন্য একটা জগতে চলে যাই। এর পর যে কথাগুলো বলেছি,

গান শুনিয়েছি পুরোটা জুড়েই ছিল পদ্মা সেতু এবং প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আমার আবেগ ও ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ। গান-বক্তব্য মিলিয়ে সবাই সময়টা দারুণ উপভোগ করেন। অনেকে আমাকে ফোন করেও সাধুবাদ দিয়েছেন। দিনটি আমার কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।’

সংসদ অধিবেশনে এদিন মমতাজের গাওয়া গান তিনটি হলো— ‘আমি দেশ-বিদেশে ঘুরে ঘুরে জয় বাংলার গান গাই’, ‘চাই না গহনা চাইনারে শাড়ি নৌকা মার্কায় ভোট না দিলে যাব বাপের বাড়ি’ এবং ‘সবার আগে চিন্তা করলো শেখ হাসিনার সরকার/যাতায়াতের প্রয়োজনে বাংলাদেশের উন্নয়নে পদ্মা সেতু দরকার।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.