যে কারণে বিএনপি নেত্রী জেরিনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে ‘আপত্তিকর ও কটূক্তিমূলক’ বক্তব্য প্রদানকারী বগুড়ার মহিলা দল নেত্রী সুরাইয়া জেরিন রনিকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

রোববার (১৭ জুলাই) দুপুরে বগুড়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক নরেশ চন্দ্র সরকার তার আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২৭ মে বগুড়ার গাবতলী উপজেলা বিএনপির সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তি করেন জেলা মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুরাইয়া জেরিন রনি।

তার ওই বক্তব্যের প্রতিবাদে ২৯ মে বেলা ১২টার দিকে গাবতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করলে বিএনপির সমর্থকরা মিছিলের উপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে।

এসময় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী দফায় দফায় সংঘর্ষ চলাকালে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ৩০ জন আহত হন।

এ ঘটনায় গাবতলী উপজেলা বিএনপির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়রসহ বিএনপির ৫ শতাধিক নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে গাবতলী থানায় মামলা করেন আওয়ামী লীগ নেতা আজিজার রহমান পাইকার। মহিলা দল নেত্রী রনির শাস্তির দাবীতে বগুড়া শহরসহ বিভিন্ন উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ, কুশপুত্তলি দাহসহ নানা কর্মসূচী পালন করেছিল আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠন। ওই মামলায় সুরাইয়া জেরিন রনি উচ্চ আদালত থেকে ৬ সপ্তাহের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন নিয়েছিলেন।

এদিকে রোববার দুপুরে জেলা জজ আদালতে জামিন নিতে আসেন রনি। তার আদালতে আসার খবরে শতাধিক যুবলীগ—ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা আদালত চত্বরে অবস্থান নেয়। এসময় বিএনপির নেতাকর্মীরাও আদালত চত্বরে আসেন। তাদের পাল্টাপাল্টি শ্লোগানে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এসময় রনিকে লক্ষ্য করে ডিম ছুড়ে মারে যুবলীগ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বগুড়ার জজ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন জানান, গাবতলীতে বিএনপির সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তির প্রতিবাদে আওয়ামী লীগের মিছিল সমাবেশে হামলার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় মহিলা দল নেত্রী সুরাইয়া জেরিন রনি আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করেন। মহিলা দল নেত্রীর জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ প্রদান করেছেন বিচারক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.