বাদীর কাছে তদন্তকারী কর্মকর্তার ঘুষ চাওয়ার অডিও ক্লিপ ফাঁ’স, বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

সংবাদ: রংপুরে একটি নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার তদন্তের জন্য বাদীর কাছে তদন্ত কারী কর্মকর্তার

টাকা ঘুষ নেয়া সংক্রান্ত একটি অডিও ক্লিপ এসেছে। বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) ভূক্তভোগী পরিবার ওই

ঘুষ চাওয়া সংক্রান্ত অডিও রেকর্ডটি দেয়। তাতে একজন পুরুষ আফসানা মিমির বাবা পরিচয়ে কবে তদন্ত রিপোর্ট দেবেন জানতে

চাইলে একজন নারীকণ্ঠে বলছেন, যতো তাড়াতাড়ি আমাদের সন্তুষ্ট করতে পারবেন, ততো তাড়াতাড়ি রিপোর্ট পাবেন। একই অডিওতে পুরুষ কণ্ঠে আবার বলা হয়, যে ১০ হাজার দিয়েছি,

তা দিয়েই কাজটা করে দেন। তখন নারী কণ্ঠে বলা হয়, দেখি অফিসে গিয়ে আগে কথা বলি …। এদিকে ওই বাদীকেই মারধরের অভিযোগ উঠেছে মামলার তদন্তকারী ওই কর্মকর্তা সদর উপজেলার সমাজ সেবা অফিসার শিখা রানীর বিরুদ্ধে।

জানা যায়, চলতি বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি রংপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদাল-১ এ স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুক দাবি ও ভ্রুণ হত্যার অভিযোগে একটি মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য রংপুর সদর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা শিখা রাণী রায়কে নির্দেশ দেন আদালত।

দীর্ঘ ৫ মাস তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য ধর্ণা দিলেও শেষে শিখা রাণী ঘুষ দাবি করলে তার দরিদ্র বাবা আফসার আলী কষ্ট করে ১০ হাজার টাকা জোগাড় করে দেন। কিন্তু বুধবার (১৩ জুলাই) আদালতে বিপক্ষে প্রতিবেদন দাখিল করায় এদিন বিকেলে টাকা ফেরৎ নিতে উপজেলা পরিষদে গেলে শিখা রাণী রায় ও তার অফিসের কর্মচারীরা আফসার ও তার ছেলে শাহিনকে বেধড়ক মারপিট করে তাড়িয়ে দেয়।

অভিযোগের বিষয় অস্বীকার করে সদর উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা শিখা রানী বলেন,টাকা পয়সা সংক্রান্ত কোনো কথা আমি বলিনি।আপনারা অডিওটি ভালো করে শুনবেন।
রংপুর সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আব্দুল মতিন বলেন, ঘটনাটি জানার পর আমরা তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.