আমার মাথা নাকি ঠিক থাকে না তোমায় দেখে! আমি কি একটু বেশিই করি?

শাড়ি বাঙালি নারীর জীবনে এক অন্যতম উল্লেখযোগ্য বসন সামগ্রী। শাড়ি হল এমন একটি জিনিস যা বাংলার মেয়েদের রূপকে সুন্দর করে তোলে।

শাড়ি পারে একটি মেয়ের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে। আর বাঙালি মেয়েরা শাড়ি পরতে অনেক পছন্দ করে!শাড়ি এমন একটি জিনিস যা নারীদের রূপ বৈচিত্র কে এক নতুন রূপে সজ্জিত করে

এছাড়া শাড়ি হল আমাদের প্রাচীন বৈশিষ্ট্য টিকিয়ে রাখার একটি মাধ্যম। বারো হাত শাড়ি যা নারীদের সৌন্দর্যকে করে তোলে এক অপরূপ বৈচিত্রে যা অন্য পোশাক পড়লে নারীকে

এতটা সুন্দর কখনো লাগবেনা তাই বলা হয় শাড়ি ছাড়া নারীকে অন্য পোশাকে কোনদিনই মানাবে না। তাই বাংলা রূপ বৈচিত্র কে টিকিয়ে রাখতে হলে শাড়ির কোন বিকল্প উপায় নেই। শাড়িতে নারীককে কেমন লাগে তা শুধু স্বামীরাই জানে!

আচ্ছা তুমি এমন কেন? বলো তো…শাড়ি মোটেও পরতে চাওনা আজকাল! শাড়ি পরতে বললেই বলো, “আমার মাথা নাকি ঠিক থাকে না তোমায় দেখে!” পাগলামি কি একটু বেশিই করি সেদিন?একটু বেশি করলে ক্ষতিই বা কি? বলো…

আমার কি দোষ তাতে? এই যে তোমায় শাড়ি পরা অবস্থায়, এলো চুলে যখন দেখি, তখন নিজেকে সামলাতে ভীষণ কষ্ট হয়! নিজেকে ধরে রাখার কি কম চেষ্টা করি? কিন্তু পারি আর কই?

নিজের মনের সাথে জোরজবরদস্তি করে শরীর কেমন ঘেমে যায়, দেখো না বুঝি? চোখ কেমন লাল হয়ে থাকে, সেদিকে নজর রাখো? শাড়ি পরলে কি একটু বেশিই জ্বালাতন করি? একটু সহ্য করে নিলেই তো হয়। আমার এমন পাগলামি বুঝি তোমার মোটেও পছন্দ নয়?

নাকি আমার পাগলামিতে তুমি নিজেও বেহুঁশ হয়ে যাও বলেই এমন দ্বিধা তোমার? তোমায় যেদিন শাড়িতে দেখি, সেদিন আর অন্য কিছু দেখি না!চোখের সামনে দিয়ে কতশত নক্ষত্র খসে পড়ে, কিন্তু সেদিকে খেয়ালই থাকে না! কতশত রংধনু আকাশে ভেসে বেড়ায়; সেদিকে নজর পড়েই না!

তোমার দিকে তাকিয়ে থাকতে থাকতে কখন সেই রাস্তার কর্দমায় পড়ে হাবুডুবু খাই, তা টেরই পাইনা। তোমায় শাড়ি পরা অবস্থায় দেখে সেদিন আর অন্যকিছু ভাবতে পারি না! আচ্ছা লক্ষ্মীটি…বলো তো, কি আছে তোমার শাড়ির মাঝে? নাকি তোমার মাঝেই অজানা রহস্য লুকিয়ে?

কেন সেদিন আদর একটু বেশিই দিতে ইচ্ছে করে তোমায়? কেন তোমাকে এতটা কাছে পেতে ইচ্ছে করে,যতটা কাছে পেলে তোমাকে আর হারানোর ভয় থাকবে না? কেন সেদিন আকাশে জোছনা ভরা চাঁদটাও আর রোমান্টিকতার সাগরে ডুবাতে পারে না, যতটা তুমি আমায় তোমার শাড়ির আঁচলে ডুবিয়ে রাখো?

তোমার শাড়ির প্রেমে পড়েই তো বুঝেছি, এক নারীতে আসক্ত থাকার মাঝে কতটা প্রশান্তি, কতটা তৃপ্তি! কিন্তু তুমি কেন আমায় আসক্ত থাকো না? কেন আমার পাগলামিতে বিরক্ত হয়ে শাড়ি পরো না খুব একটা? কেন দ্বিধায় সংকোচ নিয়ে এতটা দূরে দূরে থাকো? শাড়ি পরে আমার সামনে আসো না ঠিকই, তবে দূরে-আড়ালে লুকিয়ে থাকো! কেন আমি তোমাকে দেখতে পারি না? কেন তোমার শাড়ির আঁচলে নিজেকে লুকাতে পারি না? তবে তোমার শাড়ির আঁচলে কাকে লুকিয়ে রাখো?
কাকে?…

Leave a Reply

Your email address will not be published.