চিঠিসহ রাবির হলে মাংস দিয়ে গেলো শিবির

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) আবাসিক হলগুলোতে মাংস বিতরণ করেছে ইসলামী ছাত্র শিবির।

বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর নড়েচড়ে বসেছে রাবি প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের গার্ডদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে,

মঙ্গলবার (১২ জুলাই) সকালে ছেলেদের ১১ হলে এই মাংস পৌঁছে দেয় শিবির। এ সময় মাংসের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা শিবিরের সভাপতির পক্ষ থেকে একটি চিঠি দেওয়া হয়।

এ ঘটনা জানাজানি হলে জরুরি বৈঠক করে মাংসগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাফেটেরিয়ায় রাখার সিদ্ধান্ত নেয় হল প্রাধ্যক্ষ পরিষদ। ক্যাম্পাস সূত্রে জানা গেছে,

প্রতি বছর ঈদে আবাসিক হলগুলো বন্ধ থাকলেও এবার হল খোলা রেখে ছুটির সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এবার আবাসিক হলগুলোতে অবস্থান করে ২২৬ জন শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে ঈদ পালন করেন।

মঙ্গলবার সকালে কয়েকজন শিবিরের কর্মী এসে ছেলেদের ১১টি হলের গার্ডদের কাছে ৩-৪ থলে করে মাংস দিয়ে যায়। মাংসের থলের সঙ্গে একটি চিঠি ছিল। পরবর্তীতে চিঠি খুলে শিবিরের বিষয়টি জানার পর অনেক হলের গার্ড মাংস নিতে আপত্তি জানান। কেউ আবার মাংস শিক্ষার্থীদের না দিয়ে বাইরের মানুষদের দিয়ে দেন।

এদিকে আবাসিক হলে শিবিরের মাংস বিতরণের বিষয়টি জানাজানি হলে জরুরি বৈঠকে বসে প্রাধ্যক্ষ পরিষদ। বেলা সাড়ে ১১টায় এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে হলের নিরাপত্তা নিশ্চিত ও যেসব গার্ড মাংস গ্রহণ করেছেন তাদের বিষয়ে আলোচনা হয়। সভার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মতিহার হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক নজরুল ইসলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.