ডাঃ মুরাদ হাসানকে নিয়ে কটুক্তি, এমপি সমর্থক ও আ’লীগে উত্তেজনা!

সংবাদ: সরিষাবাড়ী আসনের সংসদ সদস্য ডা: মুরাদ হাসানকে নিয়ে কটুক্তি করার ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এমপি সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

মঙ্গলবার (১২ জুলাই) বিকেলে পৌর সভার আলতা হল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। দলীয় ও প্রত্যক্ষদর্শদের সূত্রে জানাগেছে, সরিষাবাড়ী পৌরসভার আলতা সিনেমা হল চত্বরে রিপনের চায়ের

দোকানে আওয়ামীলীগ সমর্থক শাহীনুর রহমান ও সোহেল রানা চা পান করছিল। রাজনৈতিক আলাপ আলোচনার এক পর্যায়ে স্থানীয় এমপি সমর্থক পৌর ছাত্রলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক রাকিব হাসান হাজির হলে স্থানীয়

এমপি ডা: মুরাদ হাসানএর উন্নয়নসহ বিভিন্ন বিষয়ে মন্তব্য নিয়ে কটুক্তি করে। রাকিব হাসান মারমুখি প্রতিবাদ করলে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুর রহমান এলিনএর ম্যানেজার সোহেল রানা এগিয়ে এলে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে।

এমপি সমর্থকের উগ্র আচরনের কারনে পাশেই ইপশী ফ্যাশন হাউজ এ অবস্থানকারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুর রহমান এলিন রাকিব হাসানকে ডেকে নেন। রকিব হাসান উল্টো উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুর রহমান এলিনকে খারাপ ভাষায় গালি এবং হুমকীদেন বলে শাহীনুর রহমান জানান।

এ সময় টানাহেঁচড়ার ঘটনা ঘটে। সংবাদ পেয়ে ইপশী ফ্যাশন হাউজ ২য় তলায় এমপি সমর্থক জেলা পরিষদের সদস্য খোরশেদ আলম ভিপি, উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মনিরুল ইসলাম রনি ভিপি হাজির হন। এদের সাথে আনিছুর রহমান এলিনএর সাথে কথাকাটকাটি হলে উত্তেজনা দেখা দেয়। খবর পেয়ে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল মজিদ, এস আই মুর্শিদ আলমসহ পুলিশ সদস্যরা দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

পরে এ বিষয়টি নিয়ে একটি সমঝোতা বৈঠক বসে। ওই বৈঠকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. হারুন অর রশীদ, খোরশেদ আলম ভিপি, সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল মজিদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য কামাল হোসেন পাঠান, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম রনি, যুগ্ম সম্পাদক সোহেল রানা,

পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সুমন চাকলাদার, পৌর কাউন্সিলর সুরুজ্জামান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সমঝোতা বৈঠক শেষে পৌর ছাত্রলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক রাকিব হাসান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুর রহমান এলিনএর নিকট ক্ষমা চান বলে জানাগেছে। উল্লেখ্য, স্থানীয় সংসদ সদস্য ডাঃ মুরাদ হাসান সরিষাবাড়ীতে দৃশ্যমান কোন উন্নয়ন না

করায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ ছানোয়ার হোসেন বাদশা দলীয় কর্মসূচীতে এক বক্তব্যে অভিযোগ করেন। উন্নয়ন না হওয়ায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিব্রত বলে তিনি উল্লেখ করেছেন। এরপর থেকেই সংসদ সদস্য ডা: মুরাদ হাসান সমর্থক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিরোধ স্পষ্ট হয়ে উঠে বলে দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা জানান। আর এ কারনে উপজেলা আওয়ামী লীগের কোন কর্মসূচীতে স্থানীয় এমপি ডা: মুরাদ হাসানকে দেখা যায়নি।

এ বিষয়ে সাবেক পৌর ছাত্রলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক রাকিব হাসান জানান, সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব ডা: মুরাদ হাসান কে নিয়ে শাহীনুর রহমান ও সোহেল রানা কুটক্তি করলে আমি এর প্রতিবাদ করায় আমাকে মারধর করার এক পর্যায়ে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুর রহমান এলিন আমাকে টেনে হেচড়ে তার মার্কেটের ২য় তলায় নিয়ে আমার পাঞ্জাবী ছিড়ে দেয় এবং একটি কক্ষে নিয়ে বেদম মারধর করেছে। জানতে চাইলে শাহীনুর রহমান ও সোহেল রানা জানান, রাকিব হাসান আমাদের সাথে খারাপ ব্যাবহার সহ গালিগালাজ করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.