আমার একমাস বয়সি ছেলেটা বাবাহারা হয়ে গেল: বর্ষা

সংবাদ: জনপ্রিয় ব্যান্ডশিল্পী রুমি রহমান আর নেই। এক মাস বয়সি সন্তানকে বুকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন।

ভোররাতে নাক মুখ দিয়ে রক্ত বের হয়ে মারা যান তিনি। সোমবার ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক জানান, রুমির মৃত্যু হয়েছে হাসপাতালে আনার আগেই।

রুমি রহমানের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন তার স্ত্রী গায়িকা বর্ষা চৌধুরী। তার বয়স হয়েছিল মাত্র ৪৫ বছর। পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদের সারাটা দিন পরিবারের সঙ্গে কেটেছে রুমি রহমানের।

ছবি তুলেছেন, আড্ডা দিয়েছেন। রাতের খাবারও সবাই একসঙ্গে খেয়েছেন। এক মাস বয়সি ছেলেকে ভোররাতে বুকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন বাবা রুমি। ভোররাত চারটার পরপরই রুমির খারাপ লাগা শুরু করে। এরপর পরিবারের সবার ছোটাছুটি শুরু হয় হাসপাতালে।

রুমি রহমানের অ্যাজমা ছিল। তার স্ত্রী বর্ষা বলেন, ‘অ্যাজমায় ভুগলেও রুমি কিন্তু সুস্থই ছিলেন। ভোররাতে ছেলেকে বুকে নিয়ে ঘুমান। ভোররাত চারটার পরে রুমির শরীর খারাপ হতে থাকে।

নেবুলাইজ করতে চেয়েছিল। একটু পর বললেন, আমার খারাপ লাগছে, হাসপাতালে নাও। তখন ভোর পাঁচটা বেজে গেছে। গাড়িচালক নেই। লিফট বন্ধ। লিফট চালু করা পর্যন্ত কাজের মেয়ে ধরে রেখেছিল। এর মধ্যে সে আমার শাশুড়ির রুমে এসে পড়ে যান। পড়ে গেলে নাক-মুখ দিয়ে রক্ত পড়তে শুরু করে। তারপর সবাই মিলে ধরে হাসপাতালে নিয়েছি। ডাক্তার বলেন, আনার আগেই তিনি মারা গেছেন।

রুমি রহমানের লাশ এখন তার ধানমন্ডির বাসায় রাখা আছে। কাঁদতে কাঁদতে বর্ষা জানান, ‘আমার ছেলেটা তো ছোট। আজকে ১ মাস ৪ দিন। আমার ছোট্ট ছেলেটা বাবাহারা হয়ে গেল। ও তো আর ওর বাবাকে দেখতে পাবে না।’ রুমি রহমানকে ঢাকায় দাফন করা হবে বলে জানান স্ত্রী বর্ষা চৌধুরী। পরিবারের লোকজন আজিমপুর ও বনানী কবরস্থান কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন বলেও জানালেন তার স্ত্রী। ২০২০ সালের ৩ মার্চ সংগীতশিল্পী বর্ষা চৌধুরীকে বিয়ে করেন রুমি রহমান। এর আগে অভিনয়শিল্পী তাজিন আহমেদের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল রুমির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *