সহজেই ভুঁড়ি পরিষ্কার করবেন যেভাবে

গরু কিংবা খাসির ভুঁড়ি ভীষণ উপাদেয় খাবার। অনেকেই ভুঁড়ি রান্না খুব পছন্দ করলেও ভুঁড়ি পরিষ্কারের কথা মনে করেই চুপসে যান।

আর কুরবানির ঈদে নানা ধরনের ঝকমারি কাজ শেষে ভুঁড়ি পরিষ্কার করতে বসে নাকের জল, চোখের জল এক হয় অনেকেরই।

জেনে নিন সহজেই ভুঁড়ি পরিষ্কার করার উপায়: প্রথমেই ধারালো ছুরি দিয়ে ভুঁড়িটা দুইভাগ করে এর ভেতরের সব বর্জ্য বের করে নিতে হবে। এরপর গরম পানি দিয়ে ভুঁড়ির ভেতরটা ভালো করে কয়েকবার ধুয়ে নিন।

এরপর ভুঁড়ি কয়েকটি বড় টুকরা করে নিন। বড় একটি হাঁড়িতে পানি গরম করে ভুঁড়ি সিদ্ধ করে নিন। চুলা থেকে নামিয়ে গরম থাকা অবস্থায়ই হাতে গ্লাভস পরে চামচ দিয়ে ঘষে উঠিয়ে ফেলুন ভুঁড়ির ওপরের অংশের ময়লা।

প্রাথমিকভাবে পরিষ্কার করা হয়ে গেলে একটি বড় প্যানে পরিমাণ মতো পানি গরম করুন। ১ চা চামচ হলুদের গুঁড়া দিয়ে দিন পানিতে। কেটে রাখা ভুঁড়ির টুকরা দিয়ে দিন। ফুটে ওঠা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর তেল ও ময়লা ভেসে উঠবে। ঝাঁঝরিতে উঠিয়ে পানি ঝরিয়ে ফেলুন।

গরম অবস্থায় চামচ দিয়ে উঠিয়ে ফেলুন বাকি ময়লা। বিশেষ করে চর্বির অংশে জমে থাকা ময়লা পরিষ্কার করতে হবে ভালো করে। পেছনের অংশের পাতলা আবরণ উঠিয়ে ফেলতে পারেন চাইলে। তাহলে আরও দ্রুত পরিষ্কার হবে ভুঁড়ি।

যেভাবে সংরক্ষণ করবেন: ভুঁড়ি সিদ্ধ করে ডিপফ্রিজে সংরক্ষণ করতে পারেন অনেক দিন পর্যন্ত। সিদ্ধ হওয়ার পর পানি ঝরিয়ে কয়েকবার ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। পুরোপুরি ঠান্ডা হয়ে গেলে ছোট জিপলক ব্যাগ কিংবা ঢাকনাযুক্ত বাটিতে ফ্রিজে রেখে দিন।

ভুঁড়ির পুষ্টিগুণ: ভুঁড়িতে আছে জিঙ্ক, সেলেনিয়াম, আয়রন ও ক্যালসিয়াম। এর প্রত্যেকটিই মানব শরীরের জন্য খুবই উপকারী। ১০০ গ্রাম ভুঁড়িতে থাকে ৪ গ্রাম ফ্যাট ও ১৫৭ মি.গ্রাম কোলেস্টেরল। একজন হার্টের রোগী দিনে ২০০ মি.গ্রাম কোলেস্টেরল খেতে পারেন এবং একজন সুস্থ মানুষ দিনে ৩০০ মি.গ্রাম কোলেস্টেরল খেতে পারেন। ১০০ গ্রাম ভুঁড়ি খেলে একজন সুস্থ মানুষের দিনে কোলেস্টেরল গ্রহণের নিরাপদ মাত্রার অর্ধেক এবং একজন হার্টের রোগীর দিনে কোলেস্টেরল গ্রহণের নিরাপদ মাত্রার ৭৯ শতাংশ চলে আসে। এছাড়াও ভুঁড়িতে আছে দুই ধরনের ক্ষতিকর ফ্যাট- স্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং ট্রান্স ফ্যাট।

সূত্র: ইন্টারনেট

Leave a Reply

Your email address will not be published.