৪ পরিবারের কোরবানির পশু নিয়ে গেল মুখোশ পরিহিত ডাকাতদল- জানা গেলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

সংবাদ: চট্টগ্রামের বোয়ালখালী পৌরসভার পূর্ব গোমদন্ডী নোয়া রাস্তার মাথা এলাকায় কোরবানির জন্য কেনা চার পরিবারের চারটি পশু ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় ডাকাতের হামলায় এক যুবক আহত হয়েছেন। শনিবার (৯ জুলাই) সকালে বোয়ালখালী থানার ওসি আবদুর রাজ্জাক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে শুক্রবার (৮ জুলাই) ভোরে ওই এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে একই দিন রাতে বিষয়টি জানাজানি হয়। আহত ব্যক্তি হলেন, বোয়ালখালী পৌরসভার পূর্ব গোমদন্ডী নোয়া রাস্তার মাথা এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে আরিফ।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার রাত ২টা থেকে আড়াইটার মধ্যে পূর্ব গোমদণ্ডী নোয়া রাস্তার মাথায় কয়েকটি বাড়িতে হানা দেয় মুখোশ পরিহিত ডাকাতদল।

একপর্যায়ে ডাকাতদলের মারধরে আরিফ নামের এক যুবক আহত হন। পরে স্থানীয়রা ডাকাতদলকে ধাওয়া দিলে দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে পালিয়ে যায়। স্থানীয় একটি সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা দেখা গেছে, ডাকাতদল মুখোশ করে স্থানীয় এক ব্যক্তির বাড়িতে প্রবেশ করে।

ভুক্তভোগীদের একজন জানান, শুক্রবার (৮ জুলাই) আমি রোজা রাখব বলে ভেবেছিলাম। ভোরে সেহেরি খেতে উঠে দেখি গরু নাই। পরে বাইক চালিয়ে রাস্তায় গিয়ে ওই ডাকাতদের পশুবাহী গাড়িটার দেখা পাই। এ সময় তারা আমাদের দিকে অস্ত্র তাক করেছিল। আমি আর কায়েস (ভাতিজা) কৌশলে পালিয়ে আসলেও আমার ভাতিজা আরিফকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছে ওরা। পরে সবাই মিলে আটকের চেষ্টা করলে ফাঁকাগুলি ছুঁড়ে তারা পিকআপ নিয়ে পালিয়ে যায়।

স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর শেখ আরিফ উদ্দিন জুয়েল জানান, ডাকাতি হওয়া কোরবানির চারটি পশুর মধ্যে দুটি গরু ও দুটি মহিষ। এগুলোর মোট মূল্য সাড়ে তিন লাখ টাকার ওপরে। তবে মুখোশ পরিহিত ডাকাতদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। বোয়ালখালী থানার ওসি আবদুর রাজ্জাক বলেন, এটা ডাকাতি না। এটা মূলত চুরির ঘটনা। ওরা সবগুলো পশু পাশের একটি বাগানে বেঁধে রেখেছিল। তখন পিকআপ নিয়ে চোর এসে পশুগুলোকে নিয়ে গেছে। তবে চারটি পশু একই এলাকায় আলাদা চারজনের বাড়ির আঙিনায় বাঁধা ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.