বিএনপিকে নিয়ে দেওয়া সংসদ সদস্যের বক্তব্য এক্সপাঞ্জ চাইলেন রাঙ্গা

রাজনীতি: দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে ক্ষমতায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। টানা তিনবার সংসদ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে ক্ষমতা রয়েছে দলটি।

বর্তমানে সংসদে বিরোধী দল হিসেবে জাতীয় পার্টি। এদিকে বিএনপিকে (bnp) বিরোধী দল আখ্যায়িত করে দেওয়া সংসদ সদস্যের বক্তব্য একপাঞ্জ করার দাবি জানিয়েছেন

জাতীয় সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা। সোমবার অধিবেশনে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের ওপর

সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ দাবি জানান। এসময় মসিউর রহমান বলেন, এই সংসদে আমরাই বৃহত্তর বিরোধী দল। এখানে কোনো ভুল নেই।

সংসদে অনেক এমপি বিএনপির(bnp) সমালোচনা করতে গিয়ে দলটিকে বিরোধী দল বলেন। সংসদে আমরাই বৃহত্তর বিরোধী দল। আমরা বিরোধী দল এখানে কোনো ভুল নেই।

সংসদ সদস্যরা বিএনপিকে(bnp) উদ্দেশ্য করে বিরোধী দল বলেছেন তা একপাঞ্জ করার অনুরোধ করছি। পদ্মা সেতু নির্মাণের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী অনেক চেষ্টা করে, কষ্ট করে আজকে এই সেতুটি দাঁড় করিয়েছেন। আমার মনে হয় সেতুটি যদি তিনি (প্রধানমন্ত্রী) সম্পন্ন করতে না পারতেন, তাহলে নিজের ক্ষতি নিজেই করে বসতেন।

স্পিকার আমি আপনার মাধ্যমে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে। এরকম একটি সম্ভাবনা ওনার মধ্যে আমি দেখেছিলাম যে, এনি হাউ, কষ্ট করে এটা করতে হবে। তিনি এটা করেছেন। পদ্মা সেতু নির্মাণ নিয়ে সমালোচনাকারীরা বলেছেন এটা করতে পারবেন না। আসলে এগুলো দেখার সময় ওনার (প্রধানমন্ত্রীর) নেই। তিনি যেভাবে দেশটার উন্নতি করছেন, আরো করবেন, আমরা তা বিশ্বাস করি।

মসিউর রহমান রাঙ্গা শিল্পী সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের একটি গানের কলি উল্লেখ করে বলেন, বুকটা ফাইট্টা যায়। গানের মতো ওদের বুকটা ফাইট্টা যায়। সে কারণে একবার বলে ভেঙ্গে পড়বে। একবার বলে এই হবে। একবার বলে ওই হবে। কালকে (গতকাল) আমাদের সংসদ সদস্য শাজাহান খান বলেছেন, না হয় নৌকায় যাবেন। নৌকায় আবার কেমনে যায়। এটা তো আরেকটি বিপদ। তাহলে কিসে যাবে।

তিনি বলেন, আমরা মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি এ দেশটি আমাদের। এ দেশটা রক্ষার দায়িত্ব আমাদের। এনি হাউ দেশটাকে রক্ষা আমাদের করতে হবে। এজন্য যা করতে হয় আমাদের করতে হবে।

দুর্নীতিবাজদের প্রশ্নে রাঙ্গা বলেন, দুর্নীতিবাজরা আমলা হোক বা রাজনীতিবিদ হোক বা অন্য কেউ হোক, তারা নিজেরাও জানে না তাদের কত টাকা আছে। তাদের সন্তানেরা উশৃঙ্খলে চলে গেছে। খোঁজ নিয়ে দেখেন। সব এমপিদের খোঁজ নিয়ে দেখেন, যারা এর সঙ্গে জড়িত তাদের একটি সন্তানও মানুষ হয়নি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের যতটুকু প্রয়োজন ততটুকু করা দরকার। আমার সংসদে আসতে একটা কোট দরকার, একটা টাই দরকার-এটুকু। আমি যদি এখন বিদেশ থেকে বানিয়ে নিয়ে আসি, বিদেশ থেকে আয়রন করে আনি, বিদেশ থেকে জুতা কালি করে আনি- এগুলো মানুষ পছন্দ করে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.