ফরিদপুরের ১০ গ্রামে ঈদুল আজহা যে দিন

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার ১০টি গ্রামের আংশিক মানুষ শনিবার (৯ জুলাই) পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপন করবেন।

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর সঙ্গে মিল রেখে অগ্রীম ঈদ উদযাপন করবেন তারা। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বোয়ালমারী

উপজেলার শেখর ও রুপাপাত ইউনিয়নের ১০টি গ্রামের মানুষ মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে একদিন আগে পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ আদায় ও কোরবানি দেবেন।

রাখালতলী পুরাতন মসজিদের ইমাম জয়নাল ফকির জাগো নিউজকে বলেন, ‘উপজেলার শেখর ও রুপাপাত ইউনিয়নের ১০টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ একদিন আগে ঈদ উদযাপন করবেন।

তবে দুটি গ্রামের সবাই না। অন্যরা রোববার (১০ জুলাই) স্বাভাবিক নিয়মে ঈদ উদযাপন করবেন।’বোয়ালমারীর মাইটকোমরা গ্রামের বাসিন্দা কাজী সোহান। তিনি জানান,

মাইটকুমড়া জামে মসজিদে সকাল ৮টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলার দুটি ইউনিয়নের সহস্রাইল, দড়ি সহস্রাইল, ভুলবাড়িয়া, বারাংকুলা, বড়গাঁ, মাইটকুমড়া, গঙ্গানন্দপুর, রাখালতলী, কাটাগড় ও দিঘীরপাড় গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ আগাম ঈদ উদযাপন করবেন।

বোয়ালমারী শিল্পকলা একাডেমির সদস্য ও সাংস্কৃতিক কর্মী খান মোস্তাফিজুর রহমান সুমন জাগো নিউজকে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে উপজেলার দুই ইউনিয়নের কয়েক হাজার মানুষ আগাম ঈদ উদযাপন করে থাকেন। অন্যরা দেশের প্রচলিত নিয়মে স্বাভাবিকভাবে ঈদ উদযাপন করবেন। এ বিষয়ে বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, রূপাপাত ও শেখর ইউনিয়নের ১০টি গ্রামের আংশিক মানুষ দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে রোজা ও কোরবানির ঈদ উদযাপন করে আসছেন। সে হিসেবে শনিবার তারা ঈদ উদযাপন করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.