যে কারণে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি, জানালেন স্থায়ী কমিটির সদস্য টুকু

রাজনীতি: আসন্ন দ্বাদশ নির্বাচনে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া বিএনপি অংশ নেবে না বলে আবারও জানিয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

আওয়ামী লীগ সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, এ সরকারের অধীনে আগে একবার নির্বাচন হয়েছিল, আমরা সে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলাম। আমরা বিশ্বাস করে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলাম,

কিন্তু তারা দিনের ভোট রাতেই শেষ করে দিয়েছিল। বুধবার (২৯ জুন) দুপুরে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে চন্দ্রিমা উদ্যানে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত জিয়াউর রহমানের সমাধিতে যুবদলের নবগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের নিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন

শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, সরকার এখন ইভিএম, ইভিএম করছে। অর্থাৎ, রাতের বেলা সিল মারতে হবে না, ইভিএমে দিনের বেলা ঘরে বসেই সব ভোট নিয়ে নিতে পারবে। এরকম নির্বাচনে আমরা যাবো না। বিএনপি একটি সুষ্ঠু গণতান্ত্রিক পরিবেশে নির্বাচন করতে চায়।

এসময় তিনি আরও বলেন, বিএনপি দেখিয়ে দিয়েছে গণতন্ত্র কাকে বলে। খালেদা জিয়া পদত্যাগ করে নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার দিয়েছিলেন। সে নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিএনপি পরাজয় বরণ করেছিল। এটাকেই বলে আসল গণতন্ত্র। এ সরকারের সৎ সাহস থাকলে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনে আসুক। তাতে আমরা পরাজয় বরণ করলে করবো। তবে খেলাটা ফেয়ার হতে হবে।

সিইসির চারদিনে ভোট করার প্রস্তাব সম্পর্কে জানতে চাইলে বিএনপির নীতিনির্ধারক বলেন, তিনি হাইব্রিড কি না জানি না, আবার তিনি চারদিনে কেন নির্বাচন করতে চান সেটাও জানি না। তিনি বলেন, বাংলাদেশ জন্মের আগে থেকে আমরা একদিনেই ভোট করি। চারদিনে ভোট করার মানে হলো ভোটগুলো এনে ডিসি অফিসে রাখা, ডিসি অফিসকে তো কেউ বিশ্বাস করে না। সুতরাং এটি বাংলাদেশে হবে না।

এসময় বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, যুবদলের সাবেক সভাপতি সাইফুল ইসলাম নীরব, বর্তমান সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, সাধারণ সম্পাদক মোনায়েম মুন্না, সিনিয়র সহ-সভাপতি মামুন হাসান, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মিল্টন ও যুগ্ম সম্পাদক গোলাম মাওলা শাহিনসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.