বাবা তুমি যেও না, ওরা তোমাকে মেরে ফেলবে

সংবাদ: ‘বাবা তুমি যেও না, ওরা তোমাকে মেরে ফেলবে!’ ছোট মেয়ে পাখির এমন আকুতিভরা বারণকে উপেক্ষা করে ওরা মুরগি ব্যবসায়ী আকবর হোসেন আকাকে নিয়ে যায়।

তার কিছুক্ষণ পরেই বাবার লাশ দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে ছোট্ট সোনামনি পাখি। পাখির কান্না ও আত্মীয় স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ বাতাস ভারি হয়ে উঠে।

ঘটনাটি বগুড়ার শেরপুরের কাফুড়া পূর্বপাড়া এলাকায় ঘটে। সুদের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় মঙ্গলবার (৫ জুলাই) রাত সাড়ে ৯টার দিকে প্রাণ দিতে হলো আকবর হোসেন আকা (৪৩) নামের এক মুরগি ব্যবসায়ীকে।

বুধবার (৬ জুলাই) সকালে মৃত্যুর বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ শহিদুল ইসলাম। আকবর হোসেন আকা শেরপুর উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের কাফুরা পূর্ব পাড়ার গ্রামের মৃত নবীর হোসেনের ছেলে ও ৩ মেয়ে সন্তানের জনক।

নিহত আকবর হোসেনের জামাতা শামীম হোসেন জানান, আমার শ্বশুর তার ব্যবসার মূলধন বাড়ানোর জন্য গত ৭ মাস পূর্বে ৫০ হাজার টাকা সুদের উপর নিয়ে মুরগির ব্যবসা করেন।

এই টাকার জন্য প্রতি মাসে ৪ হাজার টাকা করে লাভ দিতে হতো দাদন ব্যবসায়ীদের। ব্যবসা খারাপ হওয়ায় লাভের টাকা দিতে পারেননি।

এর প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে আজর ও রানু নামের ২ ব্যক্তি এসে আকবরকে বাড়ি থেকে ৩শ গজ দূরে (ইবতেদায়ি মাদ্রাসার পাশে বাঁশঝাড়ের কাছে) ডেকে নিয়ে যায়।

সেখানে টাকার বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে তাকে মারধর করে। এরপর আকবর আহত অবস্থায় তার বাড়ির কাছে এসে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যায়। এ সময় তার পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, তার শ্বশুরকে ডেকে নিয়ে যাওয়া সময় পাখি বারবার বলছিল- ‘বাবা তুমি যেও না, ওরা তোমাকে মেরে ফেলবে!’ এবং সত্যি সত্যি মেরে ফেলল।

এ বিষয়ে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শহীদুল ইসলাম জানান, লাশটি ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ দিলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.