গায়ে আগুন দিয়ে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার আত্মহ’ত্যা, ব্রিফিংয়ে যা বলল র‌্যাব

সংবাদ: প্রসাধনী সামগ্রী প্রস্তুতকারী কোম্পানি হেনোলাক্সের চেয়ারম্যান মো. নুরুল আমিন ও তার স্ত্রী কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা

পরিচালক ফাতেমা আমিনের কাছে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ব্যবসায়ী গাজী আনিসুর রহমান ৩ কোটি টাকা পেতেন বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ারবাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে বাহিনীর লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এ তথ্য জানান।

এ সময় গাজী আনিসের সঙ্গে আমিন-ফাতেমা দম্পত্তির ব্যবসায়িক লেনদেন, বিনিয়োগসহ সার্বিক বিষয় তুলে ধরেন মঈন। কমান্ডার মঈন বলেন, গাজী

আনিসের সঙ্গে লেনদেনে টাকার পরিমাণ নিয়ে আসামিদের আপত্তি আছে। লেনদেন হয়েছে তা তারা স্বীকার করেছেন। বিভিন্ন সময়ে চেকে ও নগদে ৭৬ লাখ টাকা পরিশোধ করেছেন।

তবে গাজী আনিসের লভ্যাংশসহ ন্যায্য পাওনা তিন কোটি টাকা। এটা নিয়েই মূলত তাদের মধ্যে একাধিকবার বাকবিতণ্ডা হয়েছে। মঈন বলেন, গত ৪ জুলাই বিকাল পৌনে ৫টার দিকে জাতীয় প্রেস ক্লাব এলাকায় আনিসুর রহমান নিজের গায়ে পেট্রল জাতীয় দাহ্য পদার্থ ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়। সেখানে তাকে আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। পরে মঙ্গলবার ভোর সোয়া ৬টায় সেখানে মারা যান তিনি।

আত্মহত্যার আগে ফেসবুকে এক পোস্টে আনিস দাবি করেন, হেনোলাক্স গ্রুপে এক কোটি ২৬ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে প্রতারণার শিকার হন তিনি। মৃত্যুর পর রাজধানীর শাহবাগ থানায় নুরুল আমিন ও ফাতেমা আমিনের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে মামলা করেন আনিসের বড়ভাই নজরুল।এ ঘটনায় নুরুল আমিন ও ফাতেমা আমিনকে মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর রাজধানীর উত্তরা থেকে গ্রেফতার করে র‍্যাব। সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব জানায়, ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা দিলেও তা লাভ এবং আসল মিলে দাঁড়ায় প্রায় ৩ কোটি টাকায়। যার মধ্যে ৭৬ লাখ টাকা ফেরত দিয়েছেন নুরুল আমিন। চেক দেওয়ার কথা স্বীকারও করেছেন গ্রেফতার দম্পতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.