গায়ে আগুন দিয়ে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু, স্ত্রীসহ হেনোলাক্সের মালিক গ্রেপ্তার

আলোচিতঃ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নিজের শরীরে প্রকাশ্যে আগুন দেওয়া ব্যবসায়ী,

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গাজী আনিসের মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আমিন ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানির (হেনোলাক্স) ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল আমিন ও তার স্ত্রী কোম্পানির পরিচালক ফাতেমা আমিনকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গাজী আনিসের মৃত্যুর পর এ ঘটনায় র‍্যাব ছায়া তদন্ত করে র‍্যাব-১। এরপর রাতে উত্তরায় অভিযান চালিয়ে আমিন ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানির (হেনোলাক্স) ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল আমিন ও তার স্ত্রী ফাতেমা আমিনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে গতকাল সোমবার (৪ জুলাই) দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব এলাকায় গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহ’ত্যার চেষ্টা করেন ব্যবসায়ী গাজী আনিস।

পরে তাকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে সন্ধ্যায় তাকে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয়।

কিন্তু সকাল সোয়া ছয়টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। জানা গেছে, হেনোলাক্স কোম্পানির কাছে ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা পাওনার দাবি নিয়ে গত ২ মাস আগে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে একটি মানববন্ধন করেছিলেন আনিস।

কিন্তু টাকা না পেয়ে সোমবার হঠাৎ প্রেস ক্লাবের সামনে এসে শরীরে আগুন দেন তিনি। উল্লেখ্য, গত ২৯ মে গাজী আনিস প্রেস ক্লাবে এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন। তিনি বলেন, ২০১৬ সালে হেনোলাক্স গ্রুপের কর্ণধার মো. নুরুল আমিন ও তার স্ত্রী ফাতেমা আমিনের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। সেই সূত্রেই ২০১৮ সালে তিনি এই টাকা হেনোলাক্স গ্রুপে বিনিয়োগ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.