ক্ষুধার যন্ত্রণায় কান্না করছিল সন্তান, সহ্য করতে না পেরে লঙ্কাকাণ্ড ঘটালেন মা!

মানুষ কতটা অসহায় হলে নিজের সন্তানকে হ’ত্যা করতে পারে। সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় আড়াই বছর বয়সী মেয়েকে গলা টিপে হ’ত্যার অভিযোগ উঠেছে মায়ের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় মা শারমিন আক্তারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার সকালে ফতুল্লার ডিগ্রিরচরের আলমগীরের ইটভাটায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত শিশুর নাম জান্নাতুল। অভাবের তাড়নায় মেয়েকে হ’ত্যা করেছি বলে জানিয়েছেন শারমিন।

পুলিশকে শারমিন জানায়, ২০১৯ সালে ফতুল্লার পাগলা এলাকার শাকিলের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তাদের সংসারে জন্ম নেয় জান্নাতুল। মেয়ের বয়স যখন ছয় মাস, তখন মা-মেয়েকে ফেলে আবার বিয়ে করে অন্যত্র চলে যায় শাকিল।

সে স্ত্রী শারমিন ও মেয়ে জান্নাতুলের খোঁজ নিত না, ভরণপোষণও দিত না। এরপর মেয়েকে নিয়ে শারমিন তার বাবার বাড়িতে থাকত। মা-বাবাও তাকে গালাগাল করতেন। ঠিকমতো খেতে দিতেন না। শিশুটিও ক্ষুধার যন্ত্রণায় কান্না করত।

শারমিনের দাবি, ক্ষুধার যন্ত্রণায় কাতর মেয়ে সোমবার সকালে কান্না শুরু করলে তার গলা টিপে ধরে শারমিন। একপর্যায়ে মেয়ে নড়াচড়া বন্ধ করে দিলে শারমিন তার বাবার বাসায় এসে মাকে ঘটনা জানায়। তখন তার মা তাকে নিয়ে স্থানীয় ফার্মেসিতে যায়।

ফার্মেসির লোকজন তাদের নারায়ণগঞ্জ দেড় শ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল পাঠান। সেখানে গেলে চিকিৎসক শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন। ফতুল্লা মডেল থানার এসআই হুমায়ূন কবির বলেন, মৃত শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সন্দেহ হয়। তারা পুলিশকে ঘটনাটি জানায়। পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে শারমিনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে নিজেই গলা টিপে মেয়েকে হত্যা করেছে বলে জানায়। তখন পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.