প্রধানমন্ত্রী ইশারায় কি বললেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের, যা জানা গেল

রাজনীতি: ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের স্লোগানের সময় সংগঠনটির অনেক নেতাকর্মীর মুখে মাস্ক দেখতে পাননি প্রধানমন্ত্রী।

তখন তিনি তাদের উদ্দেশ্য হাত নাড়িয়ে ইশারায় মাস্ক পড়তে বলেন। এরপর দেখা যায়, কয়েকজন পকেটে থাকা মাস্ক বের করে পরছেন।

প্রায় সাড়ে তিন বছর পর জন্মভূমি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই যাত্রায় প্রধানমন্ত্রীর পুত্র ও আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় এবং

কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুলও তার সঙ্গে ছিলেন। সোমবার (৪ জুলাই) দুপুর পৌনে ১২টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে

জাতির পিতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান শেখ হাসিনা। পরে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন তিনি।

পরিবারের সদস্যদের নিয়ে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানোর পর প্রধানমন্ত্রী হেঁটে আসার সময়, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা স্লোগান দিচ্ছিলেন। এ সময় ছাত্র সংগঠনটির অনেক নেতাকর্মীর মুখে মাস্ক দেখতে পাননি আওয়ামী লীগ সভাপতি। তখন তিনি তাদের উদ্দেশ্য হাত নাড়িয়ে ইশারায় মাস্ক পড়তে বলেন। এরপর দেখা যায়, কয়েকজন পকেটে থাকা মাস্ক বের করে পরছেন।

এর আগে বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে পদ্মা সেতু হয়ে সড়ক পথে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যান প্রধানমন্ত্রী। সকালে গণভবন থেকে টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে সড়ক পথে রওনা দেন প্রধানমন্ত্রী। পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর টুঙ্গিপাড়ায় এটিই তার প্রথম সফর। সঙ্গে ছিলেন তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় ও মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পুতুল।

সোমবার সকাল ৮টা ৪৮ মিনিটে মাওয়া টোল প্লাজায় টোল দিয়ে উঠেন পদ্মা সেতুতে। ব্রিজের মাঝামাঝি গিয়ে সন্তানদের নিয়ে কিছু সময় পার করেন শেখ হাসিনা। সোয়া ৯টার দিকে তিনি জাজিরা প্রান্তে যান এবং সেখানে ফলকের সামনে কিছু সময় দাঁড়ান। এরপর বিশ্রাম নেন জাজিরা প্রান্তের সার্ভিস এরিয়া-২ এ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.