রান্নাঘরে লুকিয়ে রাত্রিযাপন, সকালে যা ঘটলো তা অবিশ্বাস্য

শেরপুরের নকলা উপজেলায় প্রেমিক আরিফুল ইসলামের (২৮) ছুরিকাঘাতে সোহাগী আক্তার (২২) নামে এক কলেজছাত্রী খু’ন হয়েছেন।

এ সময় আহত হয়েছেন কলেজছাত্রীর বাবা। সোমবার (৪ জুলাই) ভোর ৬টার দিকে উপজেলার কায়দা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এরই মধ্যে

এ ঘটনায় প্রেমিক আরিফুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত সোহাগী কায়দা এলাকার শহিদুল ইসলামের মেয়ে এবং সরকারি হাজী জালমামুদ

কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিলেন। ঘাতক আরিফুল ইসলাম নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা উপজেলার কুতুরপুর ইউনিয়নের পূর্ব সিয়ারচর লালখা গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে।

জানা গেছে, মোবাইলফোনের মাধ্যমে আরিফুল ইসলামের সঙ্গে সোহাগী আক্তারের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমের টানে নারায়ণগঞ্জ থেকে রোববার (৩ জুলাই)

রাতে নকলার কায়দা এলাকায় সোহাগী আক্তারের বাড়ির রান্নাঘরে রাত্রিযাপন করে অভিযুক্ত আরিফুল। পরে আজ সোমবার ভোরে সোহাগীর বাবা শহিদুল ইসলাম ঘরের দরজা খুলে বাইরে বের হলে আরিফুল ছু’রি দিয়ে তাকে এলোপাতাড়িভাবে আঘাত করে। এ সময় তার ডাকচিৎকার শুনে সোহাগী এসে বাধা দেয়। পরে সোহাগীকেও আরিফ এলোপাতাড়িভাবে ছুরি দিয়ে আঘাত করে। এ সময় স্থানীয়রা আহত বাবা-মেয়েকে উদ্ধার করে নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সোহাগীকে মৃত ঘোষণা করে। পরে বাবা শহীদুলের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। এদিকে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয়দের সহায়তায় ঘাতক আরিফুলকে আটক করেছে পুলিশ। শেরপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হান্নান মিয়া জানান, এ ঘটনার আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মরদেহ ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শেরপুর জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত কেউ মামলা করেনি। ঘাতককে ঘটনাস্থল থেকে আটক করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.