জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিতে চায় তালেবান

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিয়ে কথা বলতে চায় তালেবান সরকার। চলতি সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এ বৈঠকে উপস্থিত হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন তালেবান সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) ব্রিটিশি সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

সোমবার জাতিসংঘে পাঠানো ওই চিঠিতে জানানো হয়, জাতিসংঘে কথা বলার জন্য তালেবানের মুখপাত্র সুহাইল শাহীনকে মনোনীত করা হয়েছে। তিনি দোহায় অনুষ্ঠিত শান্তি আলোচনাতেও তালেবানের একজন মুখপাত্র হিসেবে কাজ করেছেন।

জাতিসংঘের এক মুখপাত্র বিবিসিকে বলেন, সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে তালেবানের অনুরোধটি জাতিসংঘের ক্রেডেনশিয়াল কমিটি বিবেচনা করছে। ৯ সদস্যের ওই কমিটির অন্যতম সদস্য যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও রাশিয়া।

তবে ২৭ সেপ্টেম্বর সাধারণ পরিষদের অধিবেশন শেষ হওয়ার আগে সেখানে তালেবানের অংশ নেওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। নিয়মানুযায়ী অধিবেশন শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত জাতিসংঘে আফগানিস্তানের দূত হিসেবে গোলাম ইসাকজাই বহাল থাকবেন। তিনি ২৭ সেপ্টেম্বর সভার শেষদিনে ভাষণ দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

তালেবান নেতারা বলছেন, বিশ্বের অনেক দেশ এখন সাবেক প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনিকে আফগানিস্তানের নেতা হিসেবেও স্বীকৃতি দেয় না। তিনি আর আফগানিস্তানের প্রতিনিধিত্ব করছেন না।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল তালেবানের দখলে যায় ১৫ আগস্ট। ৬ সেপ্টেম্বর সবশেষ প্রদেশ পানশির নিয়ন্ত্রণে নেন তালেবান সদস্যরা। এর মধ্য দিয়ে পুরো দেশটির তাদের দখলে যায়। ৭ সেপ্টেম্বর এ অন্তর্বর্তীকালীন সরকার ঘোষণা করে তালেবান। প্রসঙ্গত, ২০ বছরের আফগান যুদ্ধের সমাপ্তি ঘটিয়ে স্থানীয় সময় ৩০ আগস্ট রাতে কাবুল ছাড়ে শেষ মার্কিন সেনা।