অ’তিরিক্ত ম’দপানের কারনে এবার আরেক ছাত্রলীগ নেতার মৃ’ত্যু

কক্সবাজারে বেড়াতে এসে কলাতলীর একটি আবাসিক হোটেলে ‘অতিরিক্ত মদপানে’ সাইমুন প্রিয়াম (২৫) নামের আরও এক ছাত্রলীগকর্মীর মৃ’ত্যু হয়েছে।

শনিবার দিনগত রাত সোয়া ২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আনিস আহমেদ।

এর আগে শুক্রবার সকালে একই ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতা রাফসানুল হক (২৮) নামের একজন ছাত্রলীগ নেতার মৃ’ত্যু হয়। জানা গেছে, কক্সবাজারে বেড়াতে এসে কলাতলীর বে ওয়ান ডাচ নামের একটি হোটেলে রাফসানুল হক, রায়হান ও সাইমুন প্রিয়ামসহ চার বন্ধু ওঠেন।

হোটেল কর্তৃপক্ষের দাবি, তারা সবাই অতিরিক্ত মদপান করেন। এতে তিনজন অসুস্থ হয়ে পড়লে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে রাফসানুল হকের মৃ’ত্যু হয়। অপর দুই বন্ধু রায়হান ও সাইমুন প্রিয়ামের অবস্থার অবনতি হলে তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রিয়ামের মৃ’ত্যু ঘটে।হোটেলের রেজিস্ট্রারে দেওয়া ঠিকানা অনুযায়ী, ওই তিন বন্ধুর বাড়ি চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি এলাকায়। অতিরিক্ত ম’দপানে মারা যাওয়া দুই বন্ধু চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের কর্মী বলে জানা গেছে।

কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মহিউদ্দিন আহমেদ হোটেল কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে যুগান্তরকে জানান, কক্সবাজারে বেড়াতে এসে কলাতলীর বে ওয়ান ডাচ হোটেলে রাফসানুল হক, রায়হান ও সাইমুন প্রিয়ামসহ চার বন্ধু ওঠেন। তারা সবাই অতিরিক্ত ম’দ পান করেন।

এতে তিনজন শুক্রবার সকালে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাদের মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাফসানের মৃত্যু হয়। অন্য দুজনকে চট্টগ্রামে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। সেখানে প্রিয়ামের মৃত্যু হয়েছে বলে শুনতে পেয়ে খবর নেওয়ার চেষ্টা করছি।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আনিস আহমেদ যুগান্তরকে বলেন, গতকাল রাফসানুল হকের মৃত্যু হয়েছে। পরে রাত ২টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রিয়ামের মৃত্যু হয়েছে। তিনি বলেন, অতিরিক্ত মদ্যপান নাকি বিষাক্ত-ভেজাল মদপানে তাদের মৃত্যু হয়েছে এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে তদন্ত করলে সঠিক বিষয়টি বের হয়ে আসবে।