কি ছিল রুপের ঝলক! ফিটফাট ছবি আর রুপের রহস্য অবশেষে উন্মুচন

হেলেনা জাহাঙ্গীর আলোচিত সমালোচিত একনাম। দলীয়, অনলাইন টিভি, ব্যবসায়িক, মানবিক ফাউন্ডেশন সহ নানা কিছুর আড়ালে অবৈধ অর্থের পাহাড় গড়েছেন। ফেসবুক লাইভে এসে

সব সময় আবেগি কথা বার্তা মানবিক সহায়তা করে একসময় বেশ জনপ্রিয় হয়ে উটেছিলেন অনলাইন সোশ্যাল মিডিয়াতে তবে তা বেশিদিন থাকেনি এসবের আড়ালে তাঁর আসল কর্ম জনগণ বুঝে ফেলে। হেলেনা জাগাঙ্গির মানুষ দেখানো সহায়তা করে দেশ বিদেশী বিভিন্ন সংস্থা

দাতাদের নিকট থেকে টাকা সংগ্রহ করতেন নিজের নামে মাত্র অনলাইন টিভিতে নিয়োগ দিয়ে জামানত খবর প্রকাশে নিতেন প্রতিনিধিদের নিকট থেকে টাকা। সাংবাদিকতার আড়ালে প্রতিনিধি নিয়োগ দিয়ে প্রতিনিধিদের বাধ্য করাতেন টাকা দিতে। টাকা না দিলে

সংবাদ প্রচার করা হতোনা এমন কল রেকর্ড ভাইরাল হয়েছে অনেক। প্রতিনিধি তাদের কথা ফেসবুকে পোস্ট ও করেন। এছাড়া লাইভ টকশো করাতেন প্রবাসী সহ অনেককে নিয়ে তাদের থেকে খরচ বাবত নিতেন টাকা।

জানা যায় শ্যামলা বর্ণের হলেও দেশী বিদেশী মেইকাপ ব্যাবহার করে সব সময় ঘুরে বেড়াতেন ফটো তুলে ফেসবুকে পোস্ট করতেন বয়সে ৫০ এর কাছাকাছি হলেও মেকাপ ও ফিটফাট ছবি পোস্ট করে

মেকাপ করে সুন্দর চেহারা নিয়ে লাইভে আসার কারনে অনেকে মনে করতেন হেলেনা সুন্দরি এক নারী কিন্তু গতকাল আটকের পর একটি ছবি মেকাপ ছাড়া ভাইরাল হবার পর শুরু হয়েছে রীতিমত ট্রল। আগের ও গতকালের ছবি দিয়ে জানতে চাচ্ছেন কোনটা ?

হেলেনা জাহাঙ্গীরের পুরো পরিবার নিয়ে রাজধানীর গুলাশানে আলিশান বাড়িতে বসবাস করতেন, হেলেনা জাহাঙ্গিরকে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী আটক করে নিয়ে যাবার পর সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে যে আলোচনা সমালোচনা হচ্ছে তাতেই অনুমান করা যায় হেলেনাকে মানুষ কতটুকু ঘৃণা করে। বিশেষ করে ফিটফাট ছবি রূপবতী চেহারার রহস্য গতকাল আটকের পর উন্মুচিত হয়েছে।

হেলেনা জাহাঙ্গিরকে আটক করায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বেশির ভাগ সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে।